ভারতীয় বায়ুসেনা কমান্ডার আটক, আরও পড়ুন! - DeskO [Desk Opinion]

Breaking

Wednesday, February 27, 2019

ভারতীয় বায়ুসেনা কমান্ডার আটক, আরও পড়ুন!

ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডারকে আটক করেছে পাকিস্তান। ভিডিও প্রকাশ করে এমনই দাবি পাকিস্তানের। ওই ভিডিওতে নিজেকে ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন অভিনন্দন।

মঙ্গলবার বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের পর ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করল পাকিস্তান। জম্মু-কাশ্মীরের রাজৌরি জেলার নৌশেরা সেক্টর ও পুঞ্চে ভারতের আকাশসীমা লঙ্ঘন করেছে পাকিস্তান। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে এমনই খবর। যদিও এখনও সরকারের তরফে এ প্রসঙ্গে কিছু জানানো হয়নি। ভারতীয় বায়ুসেনার তৎপরতায় শেষমেশ ফিরে যায় পাক যুদ্ধবিমান। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে আরও জানা গিয়েছে, পালানোর সময় পাক যুদ্ধবিমান থেকে বোমাবর্ষণ করা হয়েছে। যদিও বোমাবর্ষণের জেরে কোনও ক্ষয়ক্ষতি বা হতাহতের খবর মেলেনি।

বুধবার সকাল ১০টা নাগাদ এই হামলা চালানো হয় বলে জানা গিয়েছে। লক্ষ্যভেদ করতে ব্যর্থ হয়েছে পাকিস্তান। সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে, অস্ত্রভাণ্ডার, ব্রিগেড হেডকোয়ার্টার, ব্যাটেলিয়ন হেডকোয়ার্টার লক্ষ্য করে বোমা নিক্ষেপ করতে চেয়েছিল পাক বাহিনী।

পাক যুদ্ধবিমানকে আকাশসীমা লঙ্ঘন করতে দেখেই উড়ে যায় ভারতীয় যুদ্ধবিমান মিগ ২৯। পাক যুদ্ধ বিমানককে রুখতে আকাশে চক্কর কাটে ভারতীয় বায়ুসেনার বিমান। ২টি মিগ ২৯ বিমানকে গুলি করে পাকিস্তান নামিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। নিয়ন্ত্রণরেখায় একটি বিমানের ধ্বংসাবশেষ মিলেছে ভারতের দিকে। অন্য যুদ্ধবিমানটির ধ্বংসাবশেষ মিলেছে পাকিস্তানে। সংবাদসংস্থা পিটিআই সূত্রে জানা গিয়েছে, পাকিস্তানের এফ ১৬ যুদ্ধ বিমানকে গুলি করে নামানো হয়েছে। যদিও সরকারি ভাবে এখনও এ প্রসঙ্গে কিছু জানা যায়নি।

জম্মু-কাশ্মীরের উচ্চপদস্থ মহলের তরফে ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে নিশ্চিত করে জানানো হয়েছে যে, পাকিস্তানের ৩টি এফ-১৬ বিমান নিয়ন্ত্রণরেখা পেরিয়েছে।

অন্যদিকে, পাক বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র মহম্মদ ফয়জল দাবি করেছেন, বালাকোট হামলার প্রত্যুত্তরে বুধবার সকালে নিয়ন্ত্রণ রেখা বরাবর ‘এয়ার স্ট্রাইক’ চালিয়েছে পাকিস্তান। ‘‘আত্মরক্ষার জন্য আমাদের ক্ষমতা, অধিকার প্রদর্শন করাই আমাদের একমাত্র উদ্দেশ্য ছিল’’ বলে দাবি করেছেন ফয়জল। কিন্তু ভারতের তরফে এখনও কিছু জানানো হয়নি।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার রাতে নিয়ন্ত্রণরেখায় লাগাতার গুলিবর্ষণ করে পাকিস্তান। জবাবি আক্রমণে ৫টি পাকিস্তানি পোস্ট ধ্বংস করে ভারতীয় সেনা। প্রতিরক্ষামন্ত্রকের মুখপাত্র লেফট্যানেন্ট কর্নেল দেবেন্দ্র আনন্দ জানিয়েছেন, জবাবি আক্রমণে পাকিস্তানে অনেকে হতাহত হয়েছে।
মঙ্গলবার সন্ধে সাড়ে ৬টা থেকে নিয়ন্ত্রণরেখায় ১২ থেকে ১৫টি জায়গায় লাগাতার গুলিবর্ষণ চালায় পাকিস্তান। এমনকি, গ্রামবাসীদের ঢাল করে তাঁদের বাড়ি থেকে মর্টার, মিসাইল ছোড়ে পাক সেনা। এমনটাই দাবি করেছেন প্রতিরক্ষামন্ত্রকের মুখপাত্র। গ্রামবাসীদের টার্গেট করে পাক সেনা ১২০ মিমি মর্টার নিক্ষেপ করেছে বলে সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছে। অন্যদিকে, গতকাল পাক গোলাবর্ষণের ঘায়ে জখম হয়েছেন ৫ ভারতীয় সেনা জওয়ান। তাঁদের অবস্থা স্থিতিশীল বলে জানা গিয়েছে।
উল্লেখ্য, মঙ্গলবার ভোরে নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে একাধিক জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে ভারতীয় বায়ুসেনা। ভারতীয় বায়ুসেনার ১২টি ‘মিরাজ ২০০০’ বিমান জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করে। মঙ্গলবার ভোর সাড়ে তিনটে নাগাদ মিরাজ ২০০০ বিমান নিয়ন্ত্রণ রেখা পেরিয়ে এই অভিযান চালায়। হাজার কেজি বোমা নিক্ষেপ করে জঙ্গি ঘাঁটি ধ্বংস করা হয়।

হেফাজতে ভারতীয় পাইলট, টুইট পাক সেনার মুখপাত্রের!

হেফাজতে রয়েছেন ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার অভিনন্দন, টুইটে দাবি পাক সেনার মুখপাত্র মেজর জেনারেল আসিফ গাফুরের। টুইটারে অভিনন্দনের ছবিও পোস্ট গাফুরের। আকাশপথে পাক হামলা রুখতে গিয়ে মিগ-২১ যুদ্ধবিমান ভেঙে পড়েছ পাকিস্তানে, এক ভারতীয় পাইলট নিখোঁজ, একথাই জানায় ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। ভারতীয় বিদেশমন্ত্রকের মুখপাত্র রভিশ কুমার এও দাবি করেন, ‘‘পাকিস্তান দাবি করেছে ভারতীয় পাইলট তাদের হেফাজতে, তবে আমরা এটা খতিয়ে দেখছি।’’
ভারত সতর্ক থাকায় পাক হামলা সফল হয়নি, সাংবাদিক বৈঠকে স্পষ্ট জানিয়ে দিল ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক। আকাশপথে পাক হামলা বানচাল করেছে ভারতীয় বায়ুসেনা। পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমান গুলি করে নামিয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার মিগ-২১ বাইসন যুদ্ধবিমান, একথাই জানাল ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। পাশাপাশি আকাশপথে পাক হামলা রুখতে গিয়ে মিগ-২১ যুদ্ধবিমান হারাল ভারত। একইসঙ্গে ওই যুদ্ধবিমানের পাইলট নিখোঁজ বলে দাবি করেছে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। যদিও পাকিস্তানের তরফে দাবি করা হয়েছে, ‘‘ওই পাইলট তাদের হেফাজতে।’’ এ ব্যাপারে ‘‘খতিয়ে দেখা হচ্ছে’’ বলে জানিয়েছে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রক।
বুধবার সাংবাদিক বৈঠকে ভারতীয় বিদেশ মন্ত্রকের মুখপাত্র রভীশ কুমার জানিয়েছেন, ‘‘মঙ্গলবার এয়ার স্ট্রাইকের পরও পাকিস্তান তার বায়ুসেনাকে কাজে লাগিয়ে এদিন সকালে ভারতে হামলা চালিয়েছে। কিন্তু সেই চেষ্টা সফল হয়নি। পাক যুদ্ধবিমানকে দেখেই ভারতীয় বায়ুসেনার যুদ্ধবিমান আকাশে উড়ে যায়। আকাশে পাক যুদ্ধ বিমানকে রোখে ভারতীয় বায়ুসেনা। আমাদের একটি মিগ ২১ বিমান পাকিস্তানের এফ-১৬ যুদ্ধবিমানকে গুলি করে নামিয়েছে। পাক যুদ্ধ বিমানকে পড়তে দেখা গিয়েছে।’’
অন্যদিকে, ভারতের মিগ-২১ যুদ্ধবিমান ধ্বংসের কথা স্বীকার করেছে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। এ প্রসঙ্গে রভীশ কুমার বলেছেন, ‘‘তবে দুর্ভাগ্যবশত, আমাদের একটি মিগ-২১ বিমানও ভেঙে পড়েছে। পাইলটের এখনও খোঁজ পাইনি। পাকিস্তান অবশ্য দাবি করছে, ওই পাইলটকে তারা হেফাজতে নিয়েছে। এ ব্যাপারে আমরা খতিয়ে দেখছি।’’

উল্লেখ্য, ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডারকে আটক করেছে পাকিস্তান। ভিডিও প্রকাশ করে এমনই দাবি পাকিস্তানের। ওই ভিডিওতে নিজেকে ভারতীয় বায়ুসেনার উইং কমান্ডার হিসেবে পরিচয় দিয়েছেন অভিনন্দন।

পাক ডেপুটি হাইকমিশনারকে জরুরি তলব, আহত পাইলটের ছবি প্রদর্শনে তীব্র প্রতিবাদ দিল্লির!

ভারত-পাক দ্বিপাক্ষিক টানাপোড়েনের চরম মুহূর্তে বুধবার সন্ধ্যায় দিল্লিতে পাকিস্তানের ডেপুটি হাইকমিশনারকে ডেকে পাঠালো ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। পাকিস্তান ‘বিনা প্ররচনায় আগ্রাসন’ দেখিয়েছে, এই মর্মে এদিন তাঁর কাছে অভিযোগ জানায় সুষমা স্বরাজের মন্ত্রক। পাকিস্তান যেভাবে আহত ভারতীয় পাইলটকে প্রদর্শন করছে, সে বিষয়েও নিন্দা করা হয়েছে। অবিলম্বে তাঁকে ছেড়ে দেওয়া হোক বলে জানিয়েছে নয়াদিল্লি।

বিদেশমন্ত্রকের এক বিবৃতিতে বলা হয়, “বিনা প্ররচনায় আজ ভারতীয় আকাশ সীমায় প্রবেশ করে পাক বায়ুসেনা যেভাবে আগ্রাসন দেখিয়ে এ দেশের সেনা পোস্টগুলিকে লক্ষ্য করেছে, সে বিষয়ে পাক রাষ্ট্রদূতের কাছে কড়া অভিযোগ জানিয়েছে বিদেশমন্ত্রক। ২৬ ফেব্রুয়ারি বালাকোটে ভারতের আগাম অসামরিক সতর্কতামূলক পদক্ষেপের মাধ্যমে জইশ ঘাঁটির উপর আঘাতের প্রেক্ষিতে এ বিষয়টি বিসদৃশ লাগছে”। এদিন মঙ্গলবার ভোররাতে ভারতের বিমান হানার সপক্ষেও মুখ খুলেছে ভারতীয় বিদেশমন্ত্রক। মন্ত্রকের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে যে কোনও রকম আগ্রাসনের মুখে ভারতের নিরাপত্তা, সার্বভৌমত্ব এবং আঞ্চলিক ঐক্য রক্ষার্থে কঠোরতম পদক্ষেপ গ্রহণ করা হবে”।

বিদেশমন্ত্রকের বিবৃতিতে উইং কম্যান্ডার অভিনন্দনের বিষয়েও কড়া মন্তব্য করা হয়েছে। বিবৃতিতে জানানো হয়েছে, “পাকিস্তান যেভাবে ভারতীয় বায়ুসেনার আহত উইং কম্যান্ডারকে প্রদর্শন করছে, সে বিষয়ে প্রতিবাদ জানিয়েছে ভারত। পাকিস্তানের এই কাজ ইন্টারন্যাশনাল হিউম্যানিটি ল এবং ভিয়েনা চুক্তির পরিপন্থী। তাদের হেফাজতে থাকাকালীন ওই বায়ুসেনাকর্মীর যাতে কোনও রকম ক্ষতি না হয়, সে বিষয়ে সুস্পষ্ট বার্তা দেওয়া হয়েছে পাকিস্তানকে। ভারত অবিলম্বে তাঁর প্রত্যার্পণ প্রত্যাশা করছে”। উল্লেখ্য, বুধবার সকালে পাক সেনার পক্ষ থেকে ভারতীয় বায়ুসেনার আটক উইং কম্যান্ডারের ভিডিও প্রকাশ করা হয়।

জঙ্গি কার্যকলাপের ক্ষেত্রে পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক অঙ্গীকার ভঙ্গ করছে বলে রীতিমতো আশঙ্কা প্রকাশ করে বিদেশমন্ত্রকের বিবৃতিতে বলা হয়েছে, “খুবই দুর্ভাগ্যজনকভাবে পাকিস্তানের মাটিকে ব্যবহার করে কাজ করা জঙ্গি সংগঠন এবং ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে কার্যকারী ব্যবস্থা গ্রহণের ক্ষেত্রে সে দেশ আন্তর্জাতিক দায়বদ্ধতা এবং দ্বিপাক্ষিক অঙ্গীকার রক্ষা না করে ভারতের প্রতি আগ্রাসন দেখাচ্ছে”।

Pages