বিজেপি ক্ষমতায় এলে বাংলায় দাঙ্গা হবে না: যোগী - DeskO [Desk Opinion]

Breaking

Tuesday, February 5, 2019

বিজেপি ক্ষমতায় এলে বাংলায় দাঙ্গা হবে না: যোগী

রাজ্য সরকার হেলিকপ্টার অবতরণের অনুমতি না দেওয়ায় বোকারো থেকে সড়ক পথেই পুরুলিয়া গেলেন উত্তরপ্রদেশের  মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। গোরক্ষপুর মঠের একদা প্রধান মহন্তকে  বালুরঘাট এবং রায়গঞ্জের সভা শেষ মুহূর্তে বাতিল করে   অডিও কনফারেন্স করতে হয়েছিল। জানিয়েছিলেন যে ভাবেই হোক, পুরুলিয়ায় যাবেন। প্রত্যাশিত ভাবেই মমতাকে আক্রমণ করে সভা শুরু করলেন আদিত্যনাথ। কবিগুরুর কর্মভূমিতে তৃণমূলের শাসন বাংলাকে পিছিয়ে নিয়ে গিয়েছে।

“যেখানে মুখ্যমন্ত্রী ধর্নায় বসেন দুর্নীতিগ্রস্তদের বাঁচানোর জন্য, তার চেয়ে লজ্জার কিছু হতে পারে না। বাংলায় নৈরাজ্য চলছে। অসাংবিধানিক কাজকর্মে প্রশ্রয় দিচ্ছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী”, সভায় পৌঁছনোর আগেই টুইট করে মমতাকে সরাসরি আক্রমণ করেন বিজেপি নেতা।

“এই মাটিতে গর্ব করে বলা যেত, আমি হিন্দু। বিগত পাঁচ বছরে দেশে যে উন্নয়ন হয়েছে, বাংলায় তার কিছুই হয়নি। কেন্দ্র যা টাকা পাঠায়, তৃণমূলের গুণ্ডারা সব টাকা খেয়ে নেয়। বাংলায় মমতার বর্বর সরকার অপরাধীদের প্রশ্রয় দিয়ে দুর্নীতিকে বাঁচিয়ে রাখতে চাইছে। বাংলায় বিজেপি সরকারের শাসন এলে তৃণমূলের গুন্ডারা শুধরে যাবেন”, বললেন আদিত্যনাথ। ২০১৯ এ বিজেপি ক্ষমতায় এলে একটিও দাঙ্গা হবে না, এমন প্রতিশ্রুতি দিলেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী।

ব্রিটিশদের ভারত ছাড়া  করেছিল বাংলার সাধুসন্তরা, সেভাবেই বিজেপি তৃণমূলকে হারাবে। ২০১৯ সালে মোদীর নেতৃত্বে বিজেপির ফল ভাল হবে, দৃঢ় বিশ্বাস যোগীর।”

“মমতার সরকার অগণতান্ত্রিক এবং অসাংবিধানিক কার্যকলাপে মদত দেয়, তাই আমার মতো সাধু সন্ন্যাসীদের বাংলার মাটিতে ঢুকতেই দেওয়া হয় না”, অভিযোগ আদিত্যনাথের।

প্রসঙ্গত, গত ৩ ফেব্রুয়ারি বামেদের ব্রিগেড সমাবেশের দিনেই রায়গঞ্জ এবং বালুরঘাটে ছিল উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথের সভা। শেষ মুহূর্তে আদিত্যনাথের হেলিকপ্টার নামার প্রবেশানুমতি দেয়নি মমতা প্রশাসন। লখনউ থেকে ‘অডিও কনফারেন্সে’র মাধ্যমেই সভা করতে হয় আদিত্যনাথকে।  টেলি বার্তায় রাজ্যের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারকে তীব্র আক্রমণ করেছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী। এদিনের বক্তৃতার শুরুতে যোগী বলেন, “নির্ধারিত সময়েই আসতাম। কিন্তু তৃণমূল ভয় পেয়ে আমাকে আটকেছে। গণতন্ত্র বিরোধী মমতা সরকার অরাজকতাকে প্রশ্রয় দেয় এবং দেশের নিরাপত্তার বিষয়েও উদাসীন। কিন্তু আপনারা যেভাবে এই সরকারের বিরুদ্ধে লড়ছেন, আমি তাকে সমর্থন করি এবং পাশে আছি”।


 

Pages